সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারে সতর্কতা (ফেসবুক)

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারে সতর্কতা (ফেসবুক)

প্রকাশিতঃ ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১

ফেসবুকে আপনার তথ্য কিভাবে আছে, আপনার ফ্রেন্ডলিস্টে কারা রয়েছে, আপনার শেয়ার করা পোস্ট কারা দেখতে পায় কিংবা আপনার পোস্টে কারা কমেন্ট করতে ইত্যাদি নানা বিষয়ের উপর নির্ভর করে আপনার ফেসবুক একাউন্টের সুরক্ষা। নিম্নে আপনার ফেসবুক একাউন্ট সুরক্ষার জন্য কিছু নির্দেশনা প্রদান করা হলো –

১) অপরিচিত ব্যক্তির ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট এক্সেপ্ট করা থেকে বিরত থাকুন

নতুন কোন রিকোয়েস্ট এক্সেপ্ট করার আগে তার প্রোফাইলে ঢুকে ‘মিউচুয়াল ফ্রেন্ড’ লিস্টে কারা রয়েছে সেটা দেখে নিয়ে তারপর রিকোয়েস্টটি এক্সেপ্ট করুন। মিউচুয়াল ফ্রেন্ড থাকার অর্থ হলো ঐ ব্যক্তিটি আপনার অলরেডি যারা বন্ধু রয়েছে তাদের পরিচিত। এমন যদি হয় যে, রিকোয়েস্ট পাঠানো ব্যক্তিটি একেবারেই আপনার অপরিচিত, অর্থাৎ কোন মিউচুয়াল ফ্রেন্ডই নেই, তাহলে ঐ ব্যক্তির রিকোয়েস্ট এক্সেপ্ট না করাই ভালো।

২) প্রাইভেসি সেটিংস ঠিক রাখুন

সাইবার অপরাধীরা আপনার ব্যক্তিগত বিভিন্ন তথ্য ব্যবহার করে আপনার নামে ফেইক বা ডুপ্লিকেট আইডি খুলে আপত্তিকর ছবি ভিডিও শেয়ার করে আপনাকে বিপদে ফেলতে পারে। এধরণের বিপদ থেকে বাঁচার জন্য আপনার প্রোফাইলের প্রাইভেসি সেটিংস ঠিক করে নিন।

ফেসবুক ওয়ালে ঢুকে উপরে ‘update info’ তে ক্লিক করলে ব্যক্তিগত তথ্যের পাতা খুলবে। এখানে ডানদিকে বিভিন্ন তথ্যের ক্যাটাগরি রয়েছে যার মধ্যে প্রাইভেসি সেটিংসও রয়েছে। এই প্রাইভেসি সেটিংস থেকে আপনার পোস্ট আপনি কার সাথে শেয়ার করতে চান কিংবা আপনাকে কারা ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠাতে পারবে কিংবা মেসেঞ্জারে মেসেজ পাঠাতে পারবে এগুলো নির্ধারণ করে দিতে পারবেন।

৩) শক্তিশালী পাসওয়ার্ড ব্যবহার করুন

ফেসবুকে দুর্বল পাসওয়ার্ড ব্যবহার করার কারনেই মুলত আইডি হ্যাক হয়। পাসওয়ার্ড হিসেবে আপনার ফোন নাম্বার, জন্ম তারিখ, মোবাইল নাম্বার কিংবা অরিজিনাল নাম ব্যবহার করেলে খুব সহজেই একজন দক্ষ হ্যাকার আপনার একাউন্টে ঢুকে আপনার তথ্য হাতিয়ে নিতে পারে। এজন্য শব্দ, সংখ্যা এবং স্পেশাল ক্যারেক্টার ব্যবহার করে আপনার পাসওয়ার্ড সেট করুন। অন্যদিকে একই পাসওয়ার্ড বিভিন্ন জায়গায় ব্যবহার করার কারণেও আপনার একাউন্ট ঝুকির মুখে পড়তে পারে।      

৪) অন্য ডিভাইস ব্যবহার শেষে আইডি লগ আউট করুন

অন্যের ডিভাইসে ফেসবুক ব্যবহার করলে, প্রতিবার ব্যবহার শেষে অবশ্যই আইডি টি লগ আউট করুন। অন্যথায় আপনার পরিজনরাও আপনার সাথে মজা নেয়ার জন্য আপনার ফিড পোস্ট বা কমেন্ট করতে পারে।

৫ ) অ্যাপস ব্যবহারে সতর্ক থাকুন

অ্যাপসের মাধ্যমে বিভিন্ন কুইজ, ফটোল্যাব, পুরষ্কার ইত্যাদির প্রলোভন দেখিয়েও ব্যক্তিগত তথ্য ও অর্থ হাতিয়ে নেয়া সম্ভব। এমনকি আপনার ফেসবুক আইডি টিও হ্যাক হতে পারে। তাই বিশ্বাসযোগ্য না হলে এ ধরণের অ্যাপ ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন।

ফেসবুকের নিজস্ব প্রাইভেসি ও সিকিউরিটি সেটিংস ব্যবহার করেই আপনি আপনার ফেসবুক আইডি টিকে সুরক্ষিত ও নিরাপদ রাখতে পারেন। আরও বিস্তারিত জানতে ফেসবুকের প্রাইভেসি ও সিকিউরিটি অপশনগুলো দেখে নিন।


হেল্প ডেস্ক