মোবাইল পেমেন্ট অ্যাপে কিভাবে নিজেকে সুরক্ষিত রাখবেন

মোবাইল পেমেন্ট অ্যাপে কিভাবে নিজেকে সুরক্ষিত রাখবেন

প্রকাশিতঃ ১২ আগস্ট, ২০২১

স্মার্টফোনের মাধ্যমে অর্থ লেনদেরনের ক্ষেত্রে মোবাইল পেমেন্ট অ্যাপের ব্যবহার সম্প্রতি বেশ জনপ্রিয় হয়েছে। অ্যাপগুলো  এতটাই জনপ্রিয় যে স্ক্যামাররা আপনার টাকা চুরির চেষ্টা না করে থাকতে পারে না। মোবাইল পেমেন্টে অ্যাপগুলো কিভাবে কাজ করে এবং কিভাবে স্ক্যামারদের কাছে টাকা যাওয়া এড়িয়ে চলতে পারেন এ বিষয়ে নিম্নে বিস্তারিত আলোকপাত করা হলো। 


মোবাইল পেমেন্ট অ্যাপ কিভাবে কাজ করে 

বিকাশ, নগদ, রকেট, শিওর ক্যাশ, পিওর ক্যাশ, ওকে ওয়ালেট ইত্যাদি  আমাদের দেশের জনপ্রিয় মোবাইল পেমেন্ট অ্যাপগুলোর মধ্যে অন্যতম। আপনি হয়তো এর দু’একটা ইতোমধ্যে ব্যবহারও করে থাকবেন। যদি না করে থাকেন তাহলে আপনাকে দু’একটি তথ্য দিয়ে রাখি। 


এ ধরণের মোবাইল পেমেন্ট অ্যাপ ব্যবহার করার জন্য প্রথমেই আপনাকে একটি একাউন্ট খুলতে হবে। এই একাউন্টটি আপনার ব্যাংক একাউন্ট কিংবা ক্রেডিট কার্ডের সাথে লিংক করা থাকে। একবার একাউন্টটি সেট করা হলে, এই অ্যাপ ব্যবহার করে অনলাইনে পেমেন্ট করতে পারবেন। এছাড়া আপনি চাইলে আপনার পরিচিত মানুষদের টাকা পাঠাতে পারেন এ জাতীয় অ্যাপ দিয়ে। টাকা পাঠানোর ক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই সতর্ক থাকতে হবে যেন ভুল মানুষের কাছে টাকা চলে না যায়। এজন্য টাকা পাঠানর আগে প্রাপকের মোবাইল নাম্বার বা একাউন্ট নাম্বারটি ভালোভাবে চেক করে নিন। 


অন্যরাও আপনাকে টাকা পাঠানোর কাজে এই  অ্যাপ ব্যবহার করতে পারে। যখন এই পেমেন্ট অ্যাপের মাধ্যমে আপনাকে কেউ টাকা পাঠায় সে টাকা আপনার ব্যাংক একাউন্টে না গিয়ে আপনার অ্যাপেই একাউন্ট ব্যলান্স হিসেবে প্রদর্শিত হয়। এরপর এ টাকা দিয়ে আপনি কি করবেন তা আপনিই ঠিক করতে পারেন। সচরাচর মোবাইল পেমেন্ট অ্যাপগুলো আপনাকে যেসব সেবা প্রদান করে তা হলোঃ 

  • মোবাইল পেমেন্ট একাউন্টেই টাকা জমা করতে পারেন। 

  • অ্যাপ থেকে কাউকে টাকা পাঠাতে পারেন।

  • আপনার ব্যাংক একাউন্টে ট্রান্সফার করতে পারেন। 

  • কোন কিছুর মুল্য পরিশোধের জন্য পেমেন্ট করতে পারেন। 


স্ক্যামারদের হাতে থেকে অ্যাপ একাউন্ট সুরক্ষিত রাখার উপায়ঃ  

এবার আসুন জেনে নেয়া যাক, স্ক্যামারদের কাছে টাকা পাঠানোর হাত থেকে কিভাবে আপনার একাউন্টটিকে সুরক্ষিত রাখবেন।       

 

আপনার একাউন্টের টাকা চুরির উদ্দেশ্যে স্ক্যামাররা প্রতিনিয়ত নতুন নতুন গল্প তৈরি করছে। কিভাবে আপনাকে ধোকা দেয়া যায় তা নিয়ে সে ভেবেই চলেছে। তারা যেসব মিথ্যা দিয়ে আপনাকে ঠকাতে পারে তা হলো  

  • আপনি কোন পুরষ্কার জিতেছেন এবং তা সংগ্রহ করার জন্য তারা আপনার কাছে কিছু ফি চাইতে পারে। 

  • আপনার নিকট কোন ব্যক্তি সমস্যায় পরেছেন এবং তাদের কিছু টাকা প্রয়োজন। 

  • তারা টেক সাপোর্ট থেকে ফোন করেছে এমন বলতে পারে এবং আপনার অ্যাপ কিংবা একাউন্টের কোন একটি মিথ্যা সমস্যা সমাধানের জন্য আপনার কাছে টাকা চাইতে পারে।      

  • আবার এমনও হতে পারে কেউ আপনার প্রতি তার লাভ ইন্টারেস্ট শো করল এবং তার কিছু টাকার প্রয়োজন। 


মনে রাখবেন, স্ক্যামাররা খুব দ্রুত আপনার কাছ থেকে টাকা নেয়ার চেষ্টা করবে এবং আপনি যতক্ষণ রাজি না হচ্ছেন সে চেষ্টা করেই যাবে। এরপর তারা আপনাকে ভিন্ন কোন নাম্বার বা একাউন্টে টাকা পাঠানোর জন্য বলবে। এমনকি তারা কোন একটি মোবাইল পেমেন্ট অ্যাপেই আপনাকে টাকা পাঠানোর জন্য বলতে পারে। এজন্য টাকা চেয়ে অনাকাঙ্ক্ষিত কোন মেসেজ বা ইমাইল আসলে সে লিংকে ক্লিক করা থেকে বিরত থাকুন।  আগে আপনার অ্যাপে ঢুকে চেক করুন কোন টাকা পাঠানোর রিকোয়েস্ট এসেছে কিনা। যদি না এসে থাকে তাহলে ধরে নিন এটি একটি ফিশিং স্ক্যাম ছিল। 


যদি ভুল করে টাকা পাঠিয়েই ফেলেন তাহলে কি করবেন? 

যদি ভুল করে ফিশিং স্ক্যামের জালে ধরা পরেই যান, যদি টাকা পাঠিয়েই বসেন তাহলে মোবাইল পেমেন্ট অ্যাপের সার্ভিস সেন্টারে রিপোর্ট করুন এবং এই ট্রানজেকশন রিভার্স করার জন্য অনুরোধ করুন।   



হেল্প ডেস্ক